মেনু নির্বাচন করুন

মাসিক সভার সিদ্ধান্ত সমূহ

স্থানীয় সরকার ইউনিয়ন পরিষদ

চেয়ারম্যানের কার্যালয়

২নং ভূকশিমইল ইউনিয়ন পরিষদ কার্যালয়

ডাক: ভূকশিমইল, উপজেলা: কুলাউড়া, জেলা: মৌলভীবাজার, বাংলাদেশ।

 

সূত্র: ৪৫/১৪ইং                                                                                                                   তারিখ: ২০/০৬/২০১৪ইং

 

২০১৪-২০১৫ অর্থ বৎসরের উন্মোক্ত বাজেট সভার কার্য্যবিবরণী

                                

সভার উপস্থিতি:

১। জনাব মো: রফিকুলইসলাম রেনু, ইউ.পি চেয়ারম্যান

২। জনাবা পিয়ারা বেগম, মহিলা সদস্য

৩। জনাবা নেহারা বেগম, মহিলা সদস্য

৪। জনাবা সবিতা রানী পাল, মহিলা সদস্য

৫। জনাব কামাল আহমদ সিদ্দিকী, সদস্য, ওয়ার্ড নং- ১

৬। জনাব মো: আকুল মিয়া, সদস্য, ওয়ার্ড নং- ২

৭। জনাব রওশন খান, সদস্য, ওয়ার্ড নং- ৩

৮। জনাব মো: মাশুক মিয়া, সদস্য, ওয়ার্ড নং- ৪

১০। জনাব মাহবুব হাসান, সদস্য, ওয়ার্ড নং- ৬

১১। জনাব মাতাব আলী, সদস্য, ওয়ার্ড নং- ৭

১২। জনাব আব্দুল সালাম, সদস্য, ওয়ার্ড নং- ৮

১৩। জনাব মো: হারিছ মিয়া, সদস্য, ওয়ার্ড নং- ৯

১৪। জনাব মো: আব্দুর রশীদ, ইউ.পি সচিব

১৫। জনাব ধীরেন্দ্র মোহন দাস, উদ্যোক্তা, ইউআইএসসি

১৬। জনাব মো: আজমল আলী, গন্যমান্য ব্যক্তি

১৭। জনাব আব্দুল বারী, গন্যমান্য ব্যক্তি

 

            অদ্য ১৭/০৬/২০১৪ইং রোজ মঙ্গলবার বেলা ১১ ঘটিকায় ২নং ভূকশিমইল ইউনিয়ন পরিষদ জনমিলন কেন্দ্রে ২০১৪-১৫ইং অর্থ বৎসরের উন্মোক্ত বাজেট সভা অনুষ্ঠিত হয়। সভায় সভাপতিত্ব করেন অত্র ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান জনাব মো: রফিকুল ইসলাম রেনু।

 

            সভায় অত্র ইউনিয়নের সম্মানিত সদস্যবৃন্দ, কর্মকর্তা কর্মচারীবৃন্দ, সাংবাদিকবৃন্দ ও সর্বস্তরের জনগণের প্রানবমত্ম উপস্থিতিতে সভার প্রারম্ভে সভাপতি সকলকে স্বাগত ও আন্তরিক অভিনন্দন জানিয়ে সভার কাজ শুরু করেন।

 

            সভায় ২০১৪-১৫ইং অর্থ বৎসরের প্রস্ত্ততকৃত খসড়া বাজেট উপস্থাপন করা হয় এবং সকলের সম্মুখে উন্মুক্ত বাজেট সচিব পাঠ করেন। উপস্থিত সকল সদস্যবৃন্দ ও জনসাধারনের মধ্যে দীর্ঘ সময় বাজেট প্রসঙ্গে আলোচনা করা হয়। ইউনিয়ন পরিষদ পরিচালনার ক্ষেত্রে জনসাধারনের আর্থিক অবস্থার উপর বিবেচনাক্রমে ইউনিয়নের উন্নয়নের স্বার্থে চলিত অর্থ বৎসরের ধার্য্যকৃত ট্যাক্স, ফিস সমূহ বিগত অর্থ বৎসরের বাজেটের উপর ব্যাপক আলোচনায় অনেক সংশোধনক্রমে সদস্যগনের সহিত মতামত পোষন করেখাতওয়ারি ফিস নির্দ্ধারণ করা হয়। যে সকল পরিবারের আর্থিক অবস্থা অত্যমত্ম খারাপ, ভিক্ষুক, পঙ্গু, বিধবা, দরিদ্র, ভূমিহীন, ছিন্নমুল ইত্যাদি পরিবারের ট্যাক্স সভাপতি মওকুপ ঘোষণা করেন। তাছাড়া ছাত্র-ছাত্রী ও খেলোয়াড়দের বিনামূল্যে সার্টিফিকেট সরবরাহের কথাও ঘোষনা করেন। উন্মুক্ত বাজেট সভায় কেন্দ্রীয় সরকার দ্বারা বাসত্মবায়িত যোগাযোগ, শিক্ষা, স্বাস্থ্য ও কৃষি খাতে অনেক প্রকল্প সভায় উপস্থাপন করেন। ইউনিয়ন পরিষদ কর্তৃক চলমান বাসত্মবায়িত প্রকল্প সমূহ প্রকাশ্য সভায় পাঠ করেন। আগামী অর্থ বৎসরের প্রকল্প সমূহ কেন্দ্রীয় সরকার ও ইউনিয়ন পরিষদ দ্বারা বাসত্মবায়নের জন্য পৃথক পৃথক লিপিবদ্ধ ক্রমে উপস্থাপন করেন। এশিয়ার সর্ববৃহৎ হাকালুকি হাওরের দক্ষিণ সীমানায় অবস্থিত অত্র ইউনিয়নের শিক্ষার মান খুবই সমেত্মাষজনক, আইন শৃঙ্খলার পরিস্থিতি অত্যমত্ম স্বাভাবিক, তথাপিও ইউনিয়নের উন্নয়নের জন্য চলতি বৎসরে বর্দ্ধিত থোক বরাদ্ধ (এলজিএসপি) অন্যান্য ইউনিয়নের তুলনায় অত্যমত্ম কম, যাহা সার্বিক বিবেচনায় অপ্রতুল। ইউনিয়নটিকে একটি আধুনিক মডেল হিসাবে রূপান্তরিতকরার ভাবমুর্তি নিয়ে তিনি নিরলস কাজ করে যাবার অঙ্গিকার ব্যক্ত করেন। তিনি উন্নয়নমুখী বিভিন্ন দিক নির্দেশনামূলক কার্যক্রম প্রসঙ্গে আলোচনা করেন। ইউনিয়নের উন্নয়নের স্বার্থে বিভিন্ন ইলেক্ট্রনিক মিডিয়ার উপস্থিত সাংবাদিকবৃন্দের মাধ্যমে ইউনিয়নে বরাদ্ধ প্রদানের ক্ষেত্রে তারতম্যের বিষয়টি উর্দ্ধতন কর্তৃপক্ষের আশু দৃষ্টি কামনা করেন।

 

            প্রকৃত এসেসমেন্টের মাধ্যমে খানা ভিত্তিক গৃহ ট্যাক্স হ্রাস বৃদ্ধি করার জন্য সভায় ব্যাপক আলোচনা করা হয়। বিসত্মারিত আলোচনার পর ২০১৪-১৫ অর্থ বৎসরের গৃহ ট্যাক্স, ধার্য্যকৃত ফি ও উন্নয়নমূলক কর্মকান্ড ইউনিয়ন পরিষদ পরিচালনার ক্ষেত্রে প্রস্তাবাদি আলোচনায় সর্ব সম্মতিক্রমে সিদ্ধান্তগৃহীত হইল।

 

১। ব্যবসা বাণিজ্য ও বৃত্তির উপর বাৎসরিক ট্যাক্স:-

ক. যাবতীয় স্থায়ী দোকানদার ব্যবসায়ের ধরণ অনুযায়ী        = ১০০-২০০ টাকা।

খ. যাবতীয় অস্থায়ী দোকানদার ব্যবসায়ের ধরণ অনুযায়ী      = ৩০-৫০ টাকা

গ. ডাক্তার শ্রেণীর ঔষধ ব্যবসায়ী                                    = ১০০-৩০০ টাকা।

ঘ. রাইছমিল                                                              = ২০০-৫০০ টাকা।

ঙ. ফার্নিচার-                                                              = ২০০-৫০০ টাকা।

চ. ডেকোরেটার্স                                                          = ২০০-৫০০ টাকা।

**ইহাতে বাৎসরিক প্রায় = ২,০০০/- (দুই হাজার) টাকা আয় হইবে।

 

২। যানবাহনের উপর বার্ষিক ট্যাক্স:-

ক. রিক্সা                               = ৫০-১০০ টাকা।

খ. ইঞ্জিন চালিত নৌকা             = ২০০-৫০০ টাকা।

গ. সিএনজি                           = ২০০/-

ঘ.অন্যান্য ঠেলা, টলি               = ৫০-১০০ টাকা।

**ইহাতে বাৎসরিক প্রায় ২,০০০/- (দুই হাজার) টাকা আয় হইবে।

 

৩। পরিচয়পত্র ইউ.পি কর্তৃক মঞ্জুরীকৃত লাইসেন্স ও অন্যান্য ফি:-

ক. নাগরিক সনদপত্র ফি                       = ২৫ টাকা (গরীব, মেধাবী ছাত্র ও খেলোয়াড়দের জন্য মওকুপ)

খ. উত্তরাধিকারী সনদ ফি                     = ১৫০ টাকা।

গ. লাইসেন্স বা পারমিট                        = ১০০-১০০০ টাকা।

ঘ. বিদেশের জন্য ইংরেজী জন্ম সনদ ফি = ২০০ টাকা।

ঙ. মামলা এন্ট্রি ফি                             = ফৌজদারী- ২টাকা, দেওয়ানী- ৪টাকা।

চ. নকল প্রতি ১০০ শব্দ                         = ৫০ টাকা।

 

**ইহাতে প্রায় বাৎসরিক আয় হইবে ১,৬০,০০০/- (এক লক্ষ ষাট হাজার) টাকা।

 

৪। জন্ম ও মৃত্যু সনদ ফি:-

ক. মৃত্যু সনদ ফি = ৫০ টাকা।

খ. জন্ম সনদ ফি ১৮ বছরের উর্দ্ধে ৫০/- টাকা ধার্য্য ছিল। ২৩/০২/২০১৪ইং তারিখে প্রকাশিত বিজ্ঞপ্তির মর্মানুযায়ী ২ বৎসরের মধ্যে জন্ম নিবন্ধন না হইলে তার উর্দ্ধে প্রতি বৎসর ৫টাকা হারে ফি গ্রহণ করা হইবে।

 

**ইহাতে বাৎসরিক প্রায় ৭০,০০০/- (সত্তর হাজার) টাকা আয় হইবে।

 

 

৫। স্বত্ত্ব বা মালিকানা ফি :-

ক. মহিষ ও ঘোড়া প্রতিটি                      =         ৩৫-৪০ টাকা।

খ. গরম্ন প্রতিটি                                   =         ২৫ টাকা।

গ. ছাগল/ ভেড়া প্রতিটি                                     =         ১৫ টাকা।

ঘ. রাজহাঁস প্রতিটি                              =         ৫ টাকা।

ঙ. দেশি হাঁস/ মূরগ প্রতিটি                    =         ৩-৫ টাকা।

চ. নৌকা প্রতিটি                                  =         ২৫-১০০ টাকা।

ছ. অস্থায়ী মালামাল ক্রয় বিক্রয়             =         ৪% হারে।

জ. ব্যাংক, বীমা, অর্থলগ্নীকারী প্রতিষ্ঠান    =         ২০০-৫০০/- টাকা

 

**ইহাতে বাৎসরিক আয় হইবে প্রায় ১০,০০০/- (দশ হাজার) টাকা।

 

৬। খোয়াড় সমূহের আবদ্ধ পশু রাত্রিযাপন ব্যাপারে মহিষ ঘোড়া প্রতিটি ৪০/- টাকা, গরুপ্রতিটি ২৫/- টাকা, ছাগল ভেড়া ১৫ টাকা, হাঁস-মোরগ ৩-৫ টাকা প্রস্তাব ধার্য্য করা হইল। ইহাতে বাৎসরিক আয় হইবে প্রায় ২,৫০০/- টাকা।

 

৭। জমি ও দালানকোটার বাৎসরিক মূল্যের উপর খানাভিত্তিক আয়ের ৭% হারে গৃহ ট্যাক্স ৩,২৫,০০০/- টাকা প্রস্তাব ধার্য্যের জন্য আলোচনায় সিদ্ধান্তগৃহীত হইল।

 

৮। পুর্ত কমিটির আলোচনা সাপেক্ষেইউনিয়নের মধ্যে নতুন পাকা, আধা পাকা বাড়ী ঘর নির্মাণের জন্য অনুমতি পত্র ফি ৫০০- ২০০০ টাকা। এতে বাৎসরিক প্রায় ২০,০০০/- টাকাআয় হইবে।

 

৯। ইউনিয়ন উন্নয়ন সহায়তা তহবিল থেকে বরাদ্ধ এলজিএসপি প্রকল্প সম্ভাব্য ২৫,০০,০০০/- টাকা পাওয়া যাইবে। উন্নয়নমূলক কর্মকান্ডে নিয়ম অনুযায়ী প্রকল্প মাধ্যমে ব্যয় করার সিদ্ধামত্ম গৃহীত হইল। পরিশেষে অদ্যকার ২০১৪-২০১৫ অর্থ বৎসরের বাজেট ইউনিয়ন পরিষদের সম্মানী ভাতা বেতন অফিস ব্যবস্থাপনা সহ উন্নয়নমূলক কার্যক্রম বাস্তবায়নের জন্য অনুমোদন ও আশু ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য উপজেলা নির্বাহী অফিসার, কুলাউড়া-এর জ্ঞাতার্থে মাননীয় জেলা প্রশাসক, মৌলভীবাজার বরাবরে অনুরোধক্রমে প্রেরণের জন্য আলোচনায় সিদ্ধান্তগৃহীত হইল।

 

প্রকৃত এসেসমেন্টের মাধ্যমে খানা ভিত্তিক গৃহ ট্যাক্স হ্রাস বৃদ্ধি করার জন্য সভায় ব্যাপক আলোচনা করা হয়। বিসত্মারিত আলোচনার পর ২০১৪-২০১৫ অর্থ বৎসরের গৃহ ট্যাক্স, ধার্য্যকৃত ফি ও উন্নয়নমূলক কর্মকান্ড ইউনিয়ন পরিষদ পরিচালনারক্ষেত্রে প্রস্তাবাদি আলোচনায় সর্ব সম্মতিক্রমে সিদ্ধান্তগৃহীত হইল।

 

২নং ভূকশিমইল ইউনিয়নকে একটি মডেল ইউনিয়নে রূপান্তরিত করার লক্ষ্যেইউনিয়নের সর্বসত্মরের জনসাধারনের সহযোগিতা কামনা করেন। আর কোন আলোচনা না থাকায় সভাপতি উপস্থিত সকল সদস্য, গন্যমান্য ব্যক্তিবর্গ ও সাংবাদিকবৃন্দের প্রতি ধন্যবাদ জানাইয়া সভারসমাপ্তি ঘোষণা করেন। 

 

 

স্বাক্ষরিত

(মো: রফিকুল ইসলাম রেনু)

চেয়ারম্যান

২নং ভূকশিমইল ইউ.পি

কুলাউড়া, মৌলভীবাজার।

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

গত ১৬/০১/২০১৩ইং তারিখে ইউ.পি উন্নয়ন সমন্বয় সভার কার্যবিবরণী

 

সভাপতি                   :         জনাব মো: রফিকুল ইসলাম রেনু

                             চেয়ারম্যান, ২নং ভূকশিমইল ইউ.পি, কুলাউড়া, মৌলভীবাজার।

 

স্থান              :         ইউনিয়ন পরিষদ জনমিলন কেন্দ্র।

তারিখ            :         ১৬/০১/২০১৩ইং

সময়              :         দুপুর ১২.০০ ঘটিকা

 

উপস্থিতসদস্যবৃন্দ :      পরিশিষ্ট ক-তে সংযুক্ত।

 

অদ্যকার সভায় সভাপতি সাহেব উপস্থিত সকলকে স্বাগত জানিয়ে সভার কাজ শুরুকরেন।

 

অত:পর ইউনিয়ন উন্নয়ন সমন্বয় কমিটির বিভাগ ভিত্তিক উপস্থিত কর্মকর্তার সহিত বিস্তারিত আলোচনাক্রমে নিম্নলিখিত সিদ্ধান্ত সমূহ গৃহীত হয়।

 

গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের স্থানীয় সরকার পলস্নী উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রণালয় স্মারক নং ৭৪, তারিখ ১৩/০২/২০১১ইং তারিখের পরিপত্রের মর্মানুযায়ী অত্র ২নং ভূকশিমইল ইউনিয়ন পরিষদে অনুষ্ঠিত ইউনিয়ন উন্নয়ন সমন্বয় কমিটি উপস্থিত অত্র ইউনিয়নে বিভাগীয় কৃষি, স্বাস্থ্য, আইনশৃঙ্খলা, সমাজসেবা, মাধ্যমিকশিক্ষাপ্রাথমিক শিক্ষাসহ বিভিন্ন কর্মকর্তার সহিত সভাপতি সাহেব উন্নয়ন কার্যক্রম প্রসঙ্গে বিস্তারিত আলোচনা করেন। ক্ষুদ্রাকার পানি সম্পদ উন্নয়ন উপ-প্রকল্প JICAএবং DASCOH উপস্থিত প্রতিনিধি মো: সেলিম রেজা ও মোস্তাফিজুর রহমান ইউনিয়ন পরিষদকে একটি আধুনিকায়নে রূপান্তরিত অগ্রগতির লক্ষ্যেএলজিইডি মাধ্যমে প্রকল্প চিহ্নিত করণ প্রসঙ্গে সভার বিস্তারিত আলোচনা করা হয়। এলজিইডি উপ-সহকারী প্রকৌশলী ও জাইকা ও ডাস্ক প্রতিনিধি ক্ষুদ্রাকার পানি সম্পদ উন্নয়নে উপ-প্রকল্প চিহ্নিত করার ব্যাপারে বিভিন্ন দিক নির্দেশনা প্রদান করেন।

 

সভায় সভাপতি সাহেব অত্র ইউনিয়নে ধারাবাহিক ভাবে বিভিন্ন উন্নয়নের অগ্রগতির ব্যাপারে আলোচনা করেন। অত্র ইউনিয়নটি বৃহত্তর হাকালুকি হাওরের নিমণাঞ্চলে অবস্থিত কৃষি ফসলের উপর একমাত্র নির্ভরশীল বলিয়া জানান। এ বরো ইরি ফসল উৎপাদনের সময় নদীগুলো পানি শুন্য হয়ে যায় আবার ফসল উত্তোলনের সময় পানি এসে বরো ইরি ফসল ডুবিয়ে দিয়ে যায়। সভাপতি সাহেব ক্ষুদ্রাকার পানি সম্পদ উন্নয়ন ও ব্যবস্থাপনার লক্ষ্যে অবকাঠামো নির্মাণ প্রসঙ্গে বলেন যে, বাধ নির্মাণ খাল খনন ও নদী গুলোতে রেগুলেটর সুইচগেইট স্থাপন প্রসঙ্গে বিসত্মারিত আলোচনা করেন। উপস্থিত কমিটির সদস্য রওশন খান সদস্য সহ উপ-প্রকল্প চিহ্নিত ও বাসত্মবায়নের লক্ষ্যেনিম্নলিখিত উপ-প্রকল্প সমূহ আলোচনায় সর্ব সম্মতিক্রমে সিদ্ধান্তগৃহীত হয়। বাসত্মবায়নে উপজেলা প্রকৌশল অধিদপ্তর কুলাউড়া ও উর্দ্ধতন বিভাগীয় কর্মকর্তা বরাবরে সুপারিশ সহ প্রেরণ করা হইল।

 

১. আনফানাই খাল খনন ও মহিষমারা বিলের মোহনায় রেগুলেটর স্থাপন/ রাবার ড্যাম স্থাপন।

২. খইয়াজানি নদীর চালিয়ার ঘাটে রেগুলেটর বা রাবার ড্যাম স্থাপন ও নদী খনন।

৩. মরাগুগালি খাল খনন ও জাব্দা-কালেশার গ্রামের দক্ষিণ পাশে খালের মোহনায় সস্নুইচ গেইট বা রেগুলেটরস্থাপন।

৪. গোগালি খালের ভূকশিমইল হাসের টুক এর উত্তর পাশে আতালের মুখে রেগুলেটর বা সস্নুইচ গেইট স্থাপন।

৫. ফানাই নদীর চিলারকান্দির পশ্চিম পাশে রেগুলেটর স্থাপন।

৬. চান্দর খল খনন।

৭. ইসলামগঞ্জ বাজার ঘাটে গোগালী খালে রেগুলেটর স্থাপন।